বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার প্রেমিকা!

205
 মো.আবুল হাসেম,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি |  বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ১৩, ২০২২ |  ৮:১৭ অপরাহ্ণ
       
Advertisement

মন ভালো না থাকলে স্বাস্থ্যের ওপর তার বিরূপ প্রভাব পড়ে। তাই আমাদের চারপাশের মনোরম  পরিবেশে ঘুরে আসলে মন হয় ওঠে প্রফুল্ল। তবে ঘুরে আসার নামে কোন প্রেমিকাকে ধর্ষণ করলে কাল হলে দাড়াঁয় সেই ভ্রমণ। ঠিক এমনই ঘটনার শিকার হলো খাগড়াছড়ির রামগড়ে (১৪) এক কিশোরী। তাকে বেড়ানো শেষে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে প্রেমিক নাঈম মজুমদার (২২)।

সে রামগড় পৌরসভার বলিটিলার নুরুল আমিন মজুমদারের ছেলে। নাঈম সোনাইপুল বাজারের একটি কাপড় দোকানের কর্মচারি।

Advertisement

আজ বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারি ভিকটিম কিশোরি নিজে বাদি হয়ে তার প্রেমিকার বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। তখন থেকে পলাতক রয়ে ধর্ষক প্রেমিক ।

পুলিশ মেডিকেল পরিক্ষার জন্য ভিকটিম কে খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, ৬ মাস পূর্বে অভিযুক্তের সাথে মোবাইল পরিচয়ের সূত্রে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে ভুক্তভোগী কিশোরীর। গত ১০ জানুয়ারী ভুক্তভোগী বাগানবাজার তার চাচার বাসায় বেড়াতে আসে। পূর্ব পরিচয়ের সূত্রে অভিযুক্ত নাঈমের সাথে রামগড়ের বিভিন্ন স্থান ঘুরতে আসে। সন্ধ্যা নেমে আসলে নাঈম ঐ কিশোরীকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করেন। ধর্ষণ শেষে কিশোরীকে রাতে অটোরিকশা করে তার এক বান্ধবীর বাড়িতে পৌঁছে দেয়। পরে তার পরিবারকে ঘটনাটি জানালে অভিযুক্ত ধর্ষককে বিয়ের জন্য বললে  অনীহা প্রকাশ করে নাঈম। পরে ঐ কিশোরী নিজেই বাদী হয়ে রামগড় থানায় মামলা দায়ের করেন।

ভুক্তভোগীর ভাই এয়াকুব হোসেন শামীম জানান, নাঈম তার বোনকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কৌশলে ধর্ষণ করেছে। তার পরিবারকে জানালে তারা বিষয়টি টাকা দিয়ে মীমাংসা করতে চায়। এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তিনি।

রামগড় থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজিব চন্দ্র কর জাননা, ধর্ষণের অভিযোগ এনে এক কিশোরী থানায় মামলা করেছেন। মামলার পর পুলিশ অভিযুক্তকে আটকের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এমকে

Advertisement

CTG NEWS