যন্ত্রপাতি ক্রয়ে অনিয়ম

চট্টগ্রাম বন্দরের প্রধান প্রকৌশলীসহ ২ কর্মকর্তা বরখাস্ত

247
 নিজস্ব প্রতিবেদক: |  শুক্রবার, ডিসেম্বর ১০, ২০২১ |  ১:২৩ অপরাহ্ণ
       
Advertisement

যন্ত্রপাতি ক্রয়ে অনিয়মের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সুপারিশে চট্টগ্রাম বন্দরের প্রধান প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আমিনুল ইসলাম এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সন্দীপন চৌধুরীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

গত ২৯ নভেম্বর অভিযুক্ত দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেয় দুদক। এর পরিপ্রেক্ষিতে বন্দর কর্তৃপক্ষ গত বুধবার (৮ ডিসেম্বর) তাদের সাময়িক বরখাস্ত করে আদেশ জারি করে। তবে বিষয়টি দুদিন পর জানাজানি হয়।

Advertisement

বন্দর সূত্র থেকে জানা যায়, সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত বিধি ভঙ্গ করে পাঁচটি অটো ভোল্টেজ রেগুলেটর ক্রয় করার ঘটনা প্রমাণিত হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত প্রদান করা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের আলোকে দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হয় চিঠিতে। এই চিঠির পরই দুই কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

বরখাস্তের চিঠিতে বন্দর কর্তৃপক্ষ উল্লেখ করে, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স জনতা এন্টারপ্রাইজের সঙ্গে যোগসাজশে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না করে দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এতে ক্রয়সংক্রান্ত সরকারি বিধি লঙ্ঘন করা হয়েছে।

এই বিধি ব্যত্যয়ের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনে মামলা দায়ের হয়, হয় তদন্তও। এতে উম্মুক্ত দরপত্রের পরিবর্তে সীমিত দরপত্র পদ্ধতিতে ক্রয়কার্য সম্পন্ন করার বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে বলে দুদকের পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।

এই বিষয়ে দুই কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ বিবরণী পাঠানো হয়। দুজনেই জবাব দাখিল করেন। তাদের জবাব সন্তোষজনক মনে হয়নি বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে।

অপরাধ গুরুতর বিবেচনায় চাকুরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয় বলে আদেশে উল্লেখ করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বন্দর সচিব ওমর ফারুক বলেন, দুদকের সুপারিশের ভিত্তিতে দুই কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বন্দর পরিচালনা পর্ষদের এক সদস্যকে বিষয়টি তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে অভিযুক্তদের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এমকে

Advertisement

CTG NEWS