কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কাউন্সিলর সোহেল হত্যা মামলার ২ আসামি নিহত

250
 নিজস্ব প্রতিবেদক |  মঙ্গলবার, নভেম্বর ৩০, ২০২১ |  ১২:৪২ অপরাহ্ণ
কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মামলার ২ আসামি নিহত
       
Advertisement

কুমিল্লায় কাউন্সিলর সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত দুই আসামি মো. সাব্বির হোসেন ও মো. সাজেন পুলিশের সাথে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন।

সোমবার (২৯ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১ টার দিকে নগরীর সংরাইশ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

Advertisement

নিহত মো. সাব্বির হোসেন এ মামলার ৩ নম্বর আসামি এবং মো. সাজেন ৫ নম্বর আসামি। এদের মধ্যে সাব্বির সুজানগর পানির ট্যাঙ্কি এলাকার রফিক মিয়ার ছেলে এবং সাজন সংরাইস রহিম ডাক্তারের গলির কাকন মিয়ার ছেলে।

কুমিল্লা গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক পরিমল দাস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘কাউন্সিলর সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ হত্যা মামলার দুই আসামি সংরাইশ ও নবগ্রামে অবস্থান করছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় কোতয়ালি মডেল থানা ও ডিবি পুলিশের একাধিক টিম। সংরাইশ গোমতী নদীর বেড়িবাঁধের কাছে ডিবি ও থানা পুলিশের টিম পৌঁছালে আসামিরা এলোপাতাড়ি গুলি শুরু করেন। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, একটি পাইপ গান, তাজা গুলি ও গুলির খোসা জব্দ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয়রা তাদেরকে কাউন্সিলর সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ হত্যার আসামি বলে শনাক্ত করেন। সন্ত্রাসীদের গুলিতে পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছে। তাদেরকে পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২২ নভেম্বর বিকালে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেলের পাথুরিয়াপাড়া থ্রি-স্টার এন্টারপ্রাইজের কার্যালয়ে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি করে। এ ঘটনায় কাউন্সিলর সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহা গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন পাঁচজন। এ ঘটনায় কুমিল্লাসহ দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়। হত্যার ঘটনায় ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের শাহ আলমকে প্রধান আসামি করে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করা হয়। অজ্ঞাত আসামি করা হয় ১০-১২ জনকে।

এনইউএস

 

Advertisement

CTG NEWS