কোটি টাকা আত্মসাত, ১১ বছরের কারাদণ্ড এসকে সিনহার

355
  |  মঙ্গলবার, নভেম্বর ৯, ২০২১ |  ২:৫১ অপরাহ্ণ
১১ বছর কারাদণ্ড
       
Advertisement

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া সিনহাকে দুই অভিযোগে ৪৫ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ছয় মাস কারাদণ্ড এবং ফ্রিজ থাকা ৭৮ লাখ টাকা রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা হয়।

আজ ৯ নভেম্বর, মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম ফারমার্স ব্যাংক (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) থেকে চার কোটি টাকা আত্মসাত ও পাচারের মামলায় এ রায় দেন। মামলার দুই আসামি টাঙ্গাইলের বাসিন্দা মো. শাহজাহান এবং নিরঞ্জন চন্দ্র সাহাকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

Advertisement

আদালত সূত্র জানায়, মামলার অপর আট আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত অপর আসামিরা হলেন- ফারমার্স ব্যাংকের অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুল হক চিশতী (বাবুল চিশতী), একই ব্যাংকের সাবেক এমডি এ কে এম শামীম, ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট স্বপন কুমার রায়, ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. লুৎফুল হক ও সাবেক এসইভিপি গাজী সালাহউদ্দিন, ফারমার্স ব্যাংকের ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট সাফিউদ্দিন আসকারী, রণজিৎ চন্দ্র সাহা ও তার স্ত্রী সান্ত্রী রায় পলাতক। সিনহাসহ শেষ তিনজন পলাতক।

এর মধ্যে ফারমার্স ব্যাংকের এমডি একেএম শামীমকে চার বছর ও বাকিদের তিন বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। আসামিদের মধ্যে বাবুল চিশতি কারাগারে ছিলেন, তাকে এদিন আদালতে হাজির করা হয়। এছাড়া জামিনে থাকা অপর ছয়জন রায় ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন। এ সাতজনকেই সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়।

আইনজীবীরা জানান, দুটি সাজা একসঙ্গে চলবে বলে তাকে সাত বছর কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।

উল্লেখ্য, দুদক ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ১৪ সেপ্টেম্বর এ মামলায় রায়ের জন্য ৫ অক্টোবর দিন ধার্য করেন একই আদালত। তবে সেদিন অসুস্থতার কারণে বিচারক ছুটিতে থাকায় রায়ের জন্য ২১ অক্টোবর নতুন দিন ধার্য করা হয়। রায় প্রস্তুত না হওয়ায় গত ২১ অক্টোবর রায়ের তারিখ দ্বিতীয় দফায় পিছিয়ে ৯ নভেম্বর ধার্য করেন আদালত।

এসসি

Advertisement

CTG NEWS