ভাসানচরে রোহিঙ্গা সহায়তায় ইউএনএইচসিআরের চুক্তি

125
 নিজস্ব প্রতিবেদক: |  মঙ্গলবার, অক্টোবর ১২, ২০২১ |  ৬:৫২ অপরাহ্ণ
       
Advertisement

ভাসানচরে মানবিক সহায়তা কার্যক্রমে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর সাথে চুক্তি করেছে রোহিঙ্গা। এই চুক্তিকে সাধুবাদ জানিয়ে কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্পে আনন্দ মিছিল করেছে রোহিঙ্গারা । একই সঙ্গে ভাসানচরে যেতে রাজিও তারা।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে উখিয়ার ২নং ও ১৭নং ক্যাম্পসহ কুতুপালংয়ের ক্যাম্পের বিভিন্ন জায়গায় রোহিঙ্গারা আনন্দ মিছিল বের করে। এ সময় ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করেন মাঝিরা (নেতা)।

Advertisement

এ সময় ক্যাম্প মাঝিরা জানান, গত বছর থেকে নোয়াখালীর ভাসানচর দ্বীপে আধুনিক আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করে। এ পর্যন্ত ১৭/১৮ হাজার রোহিঙ্গা সেখানে আছে। কিন্তু এতদিন জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর সেখানে মানবিক সহায়তায় অংশ নেয়নি। এখন জাতিসংঘ ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তাসহ সব ধরনের সহায়তা দিতে রাজি হয়েছে। তারা সরকারের সঙ্গে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের সহায়তা কার্যক্রমে অংশ নিতে চুক্তি করেছে। তাই রোহিঙ্গারা ভাসানচরে এখন অনেক শান্তি ও স্বাচ্ছন্দ্যে থাকতে পারবে।

কক্সবাজারে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাশন কমিশন কার্যালয়ের কর্মকর্তারা জানান, ইতোমধ্যে ভাসানচরে ১৮ হাজার রোহিঙ্গাকে কক্সবাজার থেকে স্থানান্তর করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন এবং বর্ষা মৌসুমের কারণে এতদিন ভাসানচরে স্থানান্তর সাময়িক বন্ধ ছিল। আগামী মাসের মধ্যে ভাসান চরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর প্রক্রিয়া শুরু হবে।

উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ২ ওয়েস্ট ব্লকের রোহিঙ্গা মাঝি মোহাম্মদ নুর বলেন, ‘গত বছর ১৯ হাজারেও বেশি রোহিঙ্গা ভাসানচরে গেছে। ওই সময়ে জাতিসংঘের তদারকি না থাকায় সবাই চিহ্নিত ছিল। কিন্তু তিন দিন আগে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে চুক্তি হওয়ায় সব চিন্তা দূর হয়েছে। এখন সবাই ভাসানচরে যাওয়ার জন্য রাজি হয়েছে।’

উখিয়া ও টেকনাফের ওপর থেকে চাপ কমাতে এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এরই পরিপ্রেক্ষিতে এ পর্যন্ত ছয় দফায় ১৮ হাজার ৫২১ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে শিশু আট হাজার ৭৯০, নারী পাঁচ হাজার ৩১৯ ও পুরুষ চার হাজার ৪০৯ জন।

এমকে

Advertisement

CTG NEWS