ইউএনও’র স্বাক্ষর জালিয়াতির ঘটনায় তদন্ত কমিটি

622
 মো. আবু শাহেদ, হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি |  রবিবার, অক্টোবর ৩, ২০২১ |  ৪:৫২ অপরাহ্ণ
হাটহাজারীতে ইউএনও'র স্বাক্ষর জালিয়াতির ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি
       
Advertisement

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও’র) রুহুল আমিনের স্বাক্ষর জালিয়াতির ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলীর দপ্তরের অফিস সহকারী নাজিয়া বেগম ইউএনও’র স্বাক্ষর নকল করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আব্দুল্লাহ ট্রেডার্সকে অবৈধভাবে কাজ পাইয়ে দেওয়ার প্রাক্কালে প্রশাসনের কাছে ধরা পড়ে। 

আজ ৩ অক্টোবর, রোববার দুপুরে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিদুল আলম তদন্ত কমিটি গঠনের বিষয়টি সিটিজি নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

Advertisement

তিনি বলেন, উপজেলা প্রকৌশলীর দপ্তরের অফিস সহকারী নাজিয়া বেগম সাবেক ইউএনও রুহুল আমিন স্যারের স্বাক্ষর জালিয়াতির বিষয়ে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটিতে আমাদের কার্যালয়ের একজন কর্মকর্তা, উপজেলা ত্রাণ ও পুর্নবাসন- প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এবং উপজেলা প্রকৌশলীকে রাখা হয়েছে। দ্রুত তদন্ত করে বিষয়টি উদঘাটন করার জন্য কমিটি নির্দেশ দেওয়া হয়। একজন অফিস সহকারী কিভাবে স্বাক্ষর জালিয়াতি করে? তিনি কি কাজটি একা করেছেন? নাকি আরও কেউ জড়িত আছে- তার নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করার জন্য তদন্ত টিম খতিয়ে দেখবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, উপজেলা  ২০২০-২০২১ অর্থবছরে রাজস্ব উদ্বৃত্ত (উপজেলা উন্নয়ন) গড়দুয়ারা ইউপি এলাকায় ৪ লাখ ৯ হাজার ৪৯৪ টাকা বরাদ্দকৃত প্রকল্প ‘মেসার্স আব্দুল্লাহ ট্রেডার্স’ নামের একটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে দিতে তাদের ফাইলে উপজেলার সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমিনের স্বাক্ষর জাল করেন উপজেলা প্রকৌশলী দপ্তরের অফিস সহকারী নাজিয়া।  গত ২৯সেপ্টেম্বর ফাইলটি উপস্থাপন করার সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার গোপনীয় সহকারী সুমন মোহরের সন্দেহ হলে তিনি বর্তমান নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহিদুল আলমকে বিষয়টি অবগত করেন। এতেই স্বাক্ষর জালিয়াতির বিষয়টি সবার সামনে আসে। অবশেষে আজ ৩ অক্টোবর এ নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করলো উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলার সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও’র) রুহুল আমিন পরবর্তীতে  উপ- সচিব হিসেবে চা-বোর্ডে যোগদান করেন। কিন্তু নিয়মিত সচিব না থাকায় বর্তমানে চা-বোর্ডের (ভারপ্রাপ্ত সচিব) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

এনইউএস/এমজে

Advertisement

CTG NEWS