ফিল্মিস্টাইলে ছিনতাই করে চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিলো ছিনতাইকারী

184
 হাকিম মোল্লা, সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: |  সোমবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১ |  ২:৫৬ অপরাহ্ণ
ছিনতাইয়ের শিকার সুমাইয়া আকতার
ছিনতাইয়ের শিকার সুমাইয়া আকতার
       

সীতাকুণ্ডে ভদ্র বেশে স্কুল শিক্ষার্থীর মোবাইল ছিনতাই করে ফিল্মিস্টাইলে চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দিয়ে পালালো ছিনতাইকারী। এসময় ছিনতাইকারীকে ধরতে চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিয়ে পড়ার চেষ্টা করে ছিনতাইয়ের শিকার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার।

আজ ২০ সেপ্টেম্বর, সোমবার সকাল ৮টার দিকে এ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। ছিনতাইয়ের শিকার সুমাইয়া আক্তার আচরাপুল গ্রামের মুরাদের বাড়ির সিরাজুল ইসলামের মেয়ে। সুমাইয়া আচরাপুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ শ্রেণির ছাত্রী।সে তার বড় বোন তানিয়ার সাথে সাগরিকা ট্রেনে চট্টগ্রাম থেকে গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর যাচ্ছিলেন।পথিমধ্যে ছিনতাইয়ের এ ঘটনা ঘটে।

Advertisement

ছিনতাইয়ের ঘটনার শিকার সুমাইয়া আক্তার জানান, সাগরিকা নামে লোকাল ট্রেনটি ভাটিয়ারী স্টেশনে পৌঁছলে সেখানে দুই মিনিট খানেক বিরতি দিয়ে আবার চলতে থাকে। সকাল ৮টা ৮ মিনিটের সময় ট্রেনটি ভাটিয়ারী স্টেশন ও নৌবাহিনীর গেটের মাঝামাঝি পৌঁছলে দরজায় বসে থাকা ২৩-২৫ বছর বয়সী এক ছিনতাইকারী সুমাইয়ার হাত থেকে ভিভো মডেলের মোবাইলটি ছিনিয়ে নেয় এবং অন্যান্য যাত্রীদের সামনেই চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দিয়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় সুমাইয়ার কলেজ পড়ুয়া বড় বোন তানিয়া আক্তার বলেন, ট্রেনের বগীর দরজায় বসা ওই ছিনতাইকারীকে প্রথমে ভালো মানুষ মনে হয়েছে। আমাদের পাশে বসেছিলো সে। টিকেট কাটার টাকা না থাকায় টিকেট মাস্টারও তাকে বিনামূল্যে যাওয়ার অনুমতি দেয়। কিন্তু সে যে ছিনতাইকারী ছিলো বুঝার উপায় ছিলো না। মোবাইল টান মেরে নিয়ে যাওয়ার পর বুঝতে পারি সে একজন ছিনতাইকারী ছিলো।

একই বগিতে থাকা যাত্রী আলতাফ হোসেন সাংবাদিককে জানান, ভাটিয়ারী স্টেশন থেকে নৌবাহিনী গেটের মাঝামাঝি স্থানে যে মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে সে মোবাইলটি যদি উদ্ধার করা যায় এই চক্রটিকে ধরা যাবে। ভাটিয়ারীর নির্জন এই স্থানটি ছিনতাইকারীরা তাদের নিরাপদ স্থান মনে করে।

‘ক’ বগির দায়িত্বে থাকা টিকেট মাস্টার এনামুর নাম্মি তুষার জানান, ঘটনাটি আমাদের সামনেই ঘটেছে। কিন্তু চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দিয়ে পড়ে যাওয়ায় আমাদের পক্ষে কিছুই করার ছিলো না। এসময় স্কুল ছাত্রী সুমাইয়াও মোবাইলের জন্য ছিনতাইকারীর সাথে লাভ দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু তার সাথে থাকা বড় বোন ও যাত্রীরা ধরে রাখে। এতে প্রাণহানির মতো ঘটনাও ঘটতে পারতো।

এফএম/

 

 

 

Advertisement

CTG NEWS