বোয়ালখালী পৌরসভা নির্বাচন কাল

112
 পূজন সেন, বোয়ালখালী প্রতিনিধি: |  রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১ |  ৪:২২ অপরাহ্ণ
বোয়ালখালী পৌরসভায় ভোট কাল
       

আগামীকাল সোমবার বোয়ালখালী পৌরসভার নির্বাচন। সকাল আটটা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ইতোমধ্যে ভোট গ্রহণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে শুধুমাত্র কাউন্সিলর পদে। মোট ৯টি ওয়ার্ডের ২৪টি কেন্দ্রের ১৪৯টি বুথের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ভোটাররা।

গতকাল ১৮ সেপ্টেম্বর শনিবার রাতেই কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণা শেষ হয়েছে।

Advertisement

নির্বাচনে সাধারণ কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৫১জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৮জন। বৈরি আবহাওয়ায় কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি নিয়ে সংশয়ে রয়েছে প্রার্থীরা।

এই বিষয়ে পৌর এলাকার ভোটার সরকারি চাকুরীজীবী মো. হোসেন বলেন, ভোটের দিন যদি বৃষ্টি অব্যাহত থাকে তবে ভোটারদের উপস্থিত হয়তো কম হতে পারে। অফিস আদালত খোলা থাকায় অনেকে ভোট কেন্দ্রে আসতে পারবেন না। এতে ভোটের হিসাব—নিকাশও জটিল হয়ে ওঠবে।

সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন একাধিক প্রার্থী। অভিযোগ রয়েছে এ নির্বাচনে রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তার, কেন্দ্র দখল কর্মী—সমর্থক ও এজেন্টদের হুমকি ধমকি এবং ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শনের।

১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদ প্রার্থী এসএম মিজানুর রহমান প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর বিরুদ্ধে গত ১৭ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এতে তিনি অভিযোগ করেন রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী তার কর্মী—সমর্থক ও ভোটারদের হয়রানি করছেন। ৬নং ওয়ার্ডের প্রার্থী সোলাইমান বাবুল, জসিম উদ্দিন বাচা, জসিম উদ্দিন, উটপাখি প্রতীকের প্রার্থী আবু তৈয়বের সমর্থনে নির্বাচিন থেকে সরে দাঁড়িয়েছে। নির্বাচন থেকে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে সরে দাঁড়িয়েছে ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিল প্রার্থী মো.সেকান্দর মিয়া।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. নুরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনী সরঞ্জাম ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী আজ বিকেলের মধ্যে কেন্দ্রে পৌঁছে যাবে। ইভিএম এ ভোট গ্রহণের জন্য প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারদের গত ১৭ সেপ্টেম্বর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার জানিয়েছেন,আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় প্রতিটি কেন্দ্রে ১জন পুলিশ অফিসারের নেতৃত্বে পুলিশ ও আনসার সদস্যরা অবস্থা করবেন। এছাড়া ২টি স্টাইকিং ফোর্স, র্যাব—বিজিবি টহলে থাকবে। ৫জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ১জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচনী এলাকায় মোটর সাইকেল ও ট্রাক—পিক আপ চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে কাউন্সিলর পদে। সাধারণ কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার করছেন ৫১জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৮জন। বৈরি আবহাওয়ায় কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি নিয়ে সংশয়ে রয়েছে প্রার্থীরা।

পৌর এলাকার ভোটার সরকারি চাকুরীজীবী মো. হোসেন বলেন, ভোটের দিন যদি বৃষ্টি অব্যাহত থাকে তবে ভোটারদের উপস্থিত হয়তো কম হতে পারে। অফিস আদালত খোলা থাকায় অনেকে ভোট কেন্দ্রে আসতে পারবেন না। এতে ভোটের হিসাব—নিকাশও জটিল হয়ে ওঠবে। সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন একাধিক প্রার্থী। অভিযোগ রয়েছে এ নির্বাচনে রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তার, কেন্দ্র দখল কর্মী—সমর্থক ও এজেন্টদের হুমকি ধমকি এবং ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শনের। ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদ প্রার্থী এসএম মিজানুর রহমান প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর বিরুদ্ধে গত ১৭ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এতে তিনি অভিযোগ করেন রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী তার কর্মী—সমর্থক ও ভোটারদের হয়রানি করছেন।

এদিকে ৬নং ওয়ার্ডের প্রার্থী সোলাইমান বাবুল, জসিম উদ্দিন বাচা, জসিম উদ্দিন, উটপাখি প্রতীকের প্রার্থী আবু তৈয়বের সমর্থনে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।  ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিল প্রার্থী মো.সেকান্দর মিয়া।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. নুরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনী সরঞ্জাম ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী আজ বিকেলের মধ্যে কেন্দ্রে পৌঁছে যাবে। ইভিএম এ ভোট গ্রহণের জন্য প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারদের গত ১৭ সেপ্টেম্বর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। ১৮ সেপ্টেম্বর প্রতিটি কেন্দ্রে মক ভোটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার ভোট গ্রহণ করা হবে। পৌরসভায় ভোটার রয়েছেন ৫৬২৮২ জন।

এমজে/এসএম

Advertisement

CTG NEWS