শিক্ষক পেটালেন মেয়র রেজাউল, দিলেন গালি, চড়থাপ্পরও!

904
 নিজস্ব প্রতিবেদক   |  শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২১ |  ৭:৩৩ অপরাহ্ণ
       

মীরসরাই উপজেলার বারৈয়ারহাট পৌরসভার ফিয়া নুরিয়া ফাজিল মাদরাসার প্রবীণ শিক্ষক মো. ‌‌‌রবিউল হোসেনকে মারধর ও লাঞ্চিত করার অভিযোগ ‍ওঠেছে মেয়র রেজাউল করিম খোকনের বিরুদ্ধে।

আজ ১০ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি নিজেই এমন অভিযোগ করেন।

Advertisement

তার উপর ঘটে যাওয়া অত্যাচারের বর্ণনা দিতে গিয়ে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষক রবিউল হোসেন বলেন, গত বুধবার দুপুরে আমার জীবনে হৃদয় বিদারক একটি ঘটনা ঘটে যায়। আমার বড় মেয়ের প্রবাসী স্বামী ফখরুল ইসলাম খানের মালিকানাধীন খান মার্কেটের কিছু অংশ রেলওয়ে ও সড়ক জনপথের লীজ নেয়া জায়গা ওপর।

গত ২৩ মার্চ দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে খান মার্কেট উচ্ছেদসহ সম্পত্তি গ্রাস করার চেষ্টা করে আসছে মেয়র রেজাউল। এ বিষয়ে  বারইয়ারহাট পৌরসভা মিলনায়তনে একটি শালিসি বৈঠকে মেয়র রেজাউল করিম আমাকে নির্মমভাবে মারধর ও লাঞ্চিত করেছে। এসময় মেয়র আমাকে “খানকির পুত” সম্বোধন করে বলেন,  তুই ভিতরে যা। অফিসের ভিতর নিয়ে নাঈম নামে এক চামচা দিয়ে আমাকে বাধাঁর নির্দেশ দেয়। পরে আমার মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। আমার দুই গালে ও মাথায় থাপ্পর দেয়।

মেয়র হয়ে সে দানবের মতো আচরণ করেছে আমার সাথে। আমি তার বাবার বয়সী ।এভাবে অপমান করা আমার কাছে মৃত্যুর সমতুল্য।

তিনি আরও বলেন, আমি সমস্যা সমাধানের জন্য এক সপ্তাহ সময় চেয়েছি। সময় না দিলে একটা রায় দেন আমাদের মনপ্রোত  না হলে আমরা উচ্চ আদালতে যাবো । এটা বলার পর দুই গালে ও মাথায়, বুকে আঘাত করে সে। এত আমি অজ্ঞান হয়ে যায়। পরে আমাকে অজ্ঞান অবস্হায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করে বলেন, পঞ্চম দফায় বারৈয়ারহাট পৌরসভার মেয়র হিসেবে  নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে সাধারণ মানুষের সারা জীবনের অর্জিত সব সম্পত্তি নিজের মনে করে ভোগের চেষ্টা করছেন মেয়র। স্থানীয় লোকজনকে তার প্রজা ভেবে ব্যবহার করছে। সাধারণ মানুষের মৌলিক অধিকারের শিকিভাগ সেবাও পাচ্ছেনা। শুধু মেয়রের চেয়ারকে পুঁজি করে নিজের আখের গোছাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে । এলাকার মানুষকে সে মানুষ মনে করছেনা। তার হাতে নির্মম ভাবে অত্যাচারিত হয়েও এলাকার মানুষ মুখ খুলছেনা।

পরিবারের সদস্যরা সাংবাদিক সম্মেলনে আরও জানান এলাকায় সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে রেখেছে মেয়র খোকন ও তার লোকজন। তার ভয়ে মেয়র ও তার লোকজনের বিরুদ্বে কেউ কথা বলছেনা। ওসির কাছে অভিযোগ নিয়ে গেলে প্রশাসনের হাত পা বাধা বলে অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরেন থানার ওসি।

এসময় শিক্ষক রবিউলের পরিবারের সদস্য মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, পারভেজ মিয়া, সুফিয়া নুরিয়া ফাজিল মাদ্রাসার প্রাক্তন শিক্ষার্থী শফিউল আজম বক্তব্য রাখেন।

এফএম/এনইউএস

Advertisement

CTG NEWS