সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নাজমুন্নাহারের চিকিৎসা পেতে গুণতে হয় টাকা!

723
 জাবেদ ভূঁইয়া, মিরসরাই প্রতিনিধি |  সোমবার, সেপ্টেম্বর ৬, ২০২১ |  ৬:১১ অপরাহ্ণ
       

সরকারি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে সেবা গ্রহণ বিনামূল্যে হলেও এখানে ঘটছে ঠিক উল্টো। টাকা হলে স্বাস্থ্য সেবা নয়তো নেই। অভিযোগ আছে- সরকারি নিয়মকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে টাকা ছাড়া কোনো সেবাই দেন না মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ থানার বারইয়ারহাট পৌরসভার হিঙ্গুলী ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের উপ সহকারী মেডিকেল অফিসার নাজমুন্নাহার। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শাহ্ মোহাম্মদ নূর।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে বিনিময় হিসেবে টাকা নেয়ার কোন নিয়ম নেই। কিন্তু টাকা ছাড়া সেবাই মিলছে না বারইয়ারহাট স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে। প্রতিবার স্বাস্থ্য সেবা নিতে গেলে গর্ভবতী কিংবা কোনো সমস্যাগ্রস্ত মা-বোনদের গুণতে হচ্ছে ৩০-৫০ টাকা।

Advertisement

সেবা নিতে আসা আছিয়া বেগম জানান, দীর্ঘদিন ধরে এলার্জির সমস্যায় ভুগছি। তাই  এখানে আসছি। কিন্তু সেবা নিতে এসে নাজমুন্নাহার একটা প্রেসক্রিপশন লিখে দিয়ে আমাকে কিছু টাকা দিতে বলে।  টাকা না থাকায় আমি অপারগতা প্রকাশ করে বলি সরকারি কেন্দ্রে টাকা লাগবে জানলে নিয়ে আসতাম।

বিবি কুলছুমা নামের গর্ভবতী এক মহিলা জানান, আমি গর্ভধারণের ছয় মাসে প্রায় চারবার এসেছি। এতে আমাকে প্রতিবারেই  টাকা দিতে হয়েছে।

আনোয়ারা বেগম নামের আরেক মহিলা জানান, গর্ভবতী মহিলাদের প্রতিমাসে চেক-আপ করালেই গুণতে হয় ৫০ টাকা ।

ভুক্তভোগী রিকশাচালক বাহার জানান, জন্মনিরোধকের তিনমাস মেয়াদি ইনজেকশন নিতে আসলে আমার স্ত্রী ডাক্তারকে ৩০ টাকা দিলে তাকে তিনি বলেন, পরবর্তীতে ৫০ টাকা করে নিয়ে আসবেন।

টাকা নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে বারইয়ারহাট পৌরসভার হিঙ্গুলী ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের উপ সহকারী মেডিকেল অফিসার নাজমুন্নাহার সিটিজি নিউজের কাছে ব্যাপারটি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, এই কেন্দ্রে কোন টাকা নেয়া হয় না এবং সম্পূর্ণ ফ্রি তে সেবা দেয়া হয়। এখানে সব গরীবরাই চিকিৎসা সেবা নিতে আসেন।

তবে সেবা গ্রহীতারা অনেক সময় খুশি হয়ে টাকা দেন বলেও প্রতিবেদকের কাছে স্বীকার করেন নাজমুন্নাহার।

মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শাহ্ মোহাম্মদ নূর সিটিজি নিউজকে বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে চিকিৎসা সেবা দিয়ে কোন টাকা নেয়ার নিয়ম নেই। এমন কারো বিরুদ্ধে যদি কেউ লিখিত অভিযোগ দেন তাহলে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

তিনি আরও বলেন, নাজমুন্নাহারের বিরুদ্ধে এর আগেও অনেক কথা শুনেছি কিন্তু কেউ লিখিত অভিযোগ কিংবা কোন তথ্য প্রমাণ না দেয়ায় কোন ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হয়নি।

এসএম

Advertisement

CTG NEWS